Baranti-Biharinath Tour

পুজোয় এবার কী ভাবছেন? করোনা আতঙ্কে ঘরে বসে দিন কাটাবেন, না বেরিয়ে পড়বেন আবার আগের মতোই। অনেক তো হলো, আর কতদিন এই নৈরাশ্যের অবসাদকে সঙ্গী করে অপেক্ষার পালা চালিয়ে যাওয়া। ছাড়ুন তো,কয়েকটা দিন ভুলে থাকুন সবকিছু। চলুন বেরিয়ে পড়ি,সব সরকারি নিষেধাজ্ঞা মেনেই। আমরা কিন্তু তৈরি। এবার পুজোয় আমরা চলেছি পুরুলিয়ার রাঙা মাটির দেশ বড়ন্তি।২২ অক্টোবর, ষষ্ঠীর রাতে যাত্রা শুরু, আর ফিরে আসবো ২৬ তারিখ, দশমীর সকালে। তিনটে দিন পাহাড় ঘেরা গ্রাম বড়ন্তির কোলে। একদিকে পঞ্চকোট পাহাড় আর অন্যদিকে বিহারীনাথ পাহাড়, আর মাঝে রয়েছে ১ কিমি বিস্তৃত নয়নাভিরাম বড়ন্তি লেক। পাহাড়ের গায়ে গায়ে শাল,পিয়াল,আমলকী,আর বাশ গাছের সমারোহ। গ্রামটিকে ঘিরে রয়েছে সারি সারি খেজুর গাছ। মনে হবে পটে আকা ছবি। আর পলাশ বন, যা বসন্তে আগমনে মাতাল করে তোলে মন। পূর্ণিমার রাতে মোহময়ী বড়ন্তি অপরুপা,অনন্যা। এবার শুধু অপেক্ষার পালা। তিনটে দিন এরই মাঝে ঘুরে নেবো বড়ন্তিকে কেন্দ্র করে বেশ কিছু জায়গা। সেগুলোর আকর্ষণ কিছু কম নয়। প্রথম দিন যাবো জয়চন্ডী পাহাড়, গড়পঞ্চকোট আর পাঞ্চেত ড্যাম,,দ্বিতীয় দিন আমরা বিহারীনাথ আর শুশুনিয়ার পথে, আর তৃতীয় দিন চলেছি মাইথন ড্যাম আর কল্যাণেশ্বরী মন্দির ঘুরে আসবো। এছাড়াও পায়ে পায়ে বড়ন্তি গ্রামের পথে পথে দুচোখ ভরে সবুজের স্পর্শ আর বুক ভরে শ্বাস নেবো। রাত্রিবাস বড়ন্তির রিসর্টে। থাকছে প্রতিদিনের মেনুতে লোভনীয় আর বৈচিত্রে ভরা সব আইটেম। সফরের জনপ্রতি খরচ, মেনুর আরও বিস্তারিত বর্ণনা,কীভাবে যাবো সব জানাচ্ছি পরের পোস্টেই। এর মধ্যে আপনি কেবল মনস্থির করে ফেলুন। আর একটা ফোন করুন।ব্যাস,সব দায়িত্ব আমাদের। হাত বাড়ান বন্ধু, আমরা হাত বাড়িয়েই আছি। এই নম্বরে — 9051159324/7980297340

Leave a Comment

Your email address will not be published.